মঙ্গলবার, ০৩ অগাস্ট ২০২১, ০৯:৫৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
শিরোনাম
লকডাউনের মধ্যেও সীমান্ত দিয়ে থেমে নেই অবৈধ পারাপার কু্ষ্টিয়া প্রেসক্লাব কেপিসি’র সাধারন সম্পাদক সোহেল রানা’র ছোট বোনের দাফন সম্পন্ন কুষ্টিয়া ছাত্রলীগের সভাপতি আতিকুর রহমান অনিককে হত্যার উদ্দেশ্যে গুলি চালায় খলিসাকুন্ডির মসজিদে মসজিদে পবিত্র ঈদুল আজহার জামাত খলিসাকুন্ডি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সাবেক (ভারপ্রাপ্ত) প্রধান শিক্ষক রমজান আলী আর নেই দৌলতপুরে সাবেক এম.পি আফাজ উদ্দিনের দাফন সম্পন্ন সাবেক সংসদ সদস্য আফাজ উদ্দিন আহমদের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক দৌলতপুরে পুলিশের অভিযানে ২ কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক বর্ষিয়ান আওয়ামীলীগ নেতা আফাজ উদ্দিন আহমেদের মৃত্যুতে হানিফ এমপি’র শোক আফাজ উদ্দিন আহমেদের মৃত্যুতে কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগের শোক

সাংবাদিক খোকনের মৃত্যুর পর মিথ্যাচার: জেইউকের সংবাদ সম্মেলন

নিজস্ব প্রতিনিধি : / ১৩ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ১৮ মে, ২০২১, ৪:০৯ pm

সাংবাদিক ইউনিয়ন কুষ্টিয়ার সাধারণ সম্পাদক ও নিউজ 24 চ্যানেলের কুষ্টিয়া প্রতিনিধি জামিল হাসান খান খোকন ঢাকায় নিউরো সাইন্স হসপিটালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন। ঈদের দিন জানাযার নামাজ শেষে কুষ্টিয়া পৌর গোরস্থানে দাফন সম্পন্ন হয়। মৃত্যুর পরের দিন থেকে বিএনপি-জামায়াতপন্থী কতিপয় সাংবাদিক তাদের আদর্শগত জায়গা থেকে মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও ষড়যন্ত্রমুলক মিথ্যাচার করছে।

 

 

সাধারন সম্পাদকের মৃত্যুর পর সাংবাদিক ইউনিয়ন কুষ্টিয়ার সভাপতি, যুগ্ম সাধারন সম্পাদকসহ কমিটির সবার নামে মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রের জিডি করে কুষ্টিয়ায় মুক্তিযুদ্ধের চেতনার ইউনিয়নকে ধ্বংসের চক্রান্ত করছে।

 

সাংবাদিক ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দের নামে বিভ্রান্তিকর এবং অপপ্রচার চালাতে থাকে। এর প্রতিবাদে মঙ্গলবার দুপুরে সাংবাদিক ইউনিয়ন কুষ্টিয়ার কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করা হয়। এতে লিখিত বক্তব্যে সাংবাদিক ইউনিয়ন কুষ্টিয়ার সভাপতি রাশেদুল ইসলাম বিপ্লব বলেন, জামিল হাসান খান খোকন জীবিত থাকতে তাকে যারা ঘায়েল করতে পারেনি তারা মৃত খোকনকে পুঁজি করে কুষ্টিয়ার প্রগতিশীল সাংবাদিকদের শায়েস্তা করার অপচেষ্টা করছে। সাংবাদিকরা তাদের এই চক্রান্ত নস্যাৎ করে দেবে। সাংবাদিক নেতা খোকন ঈদের চাঁদার টাকার ভাগ বাটোয়ারাকে কেন্দ্র করে মারা গেছেন বলে মৃত ব্যক্তিকে নিয়ে একটি চ্যানেলে যে আপত্তিকর সংবাদ প্রচার করেছে এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান সাংবাদিক ইউনিয়ন কুষ্টিয়ার সভাপতি রাশেদুল ইসলাম বিপ্লব। সাংবাদিক ইউনিয়ন কুষ্টিয়া সরকার অনুমোদিত ও নিবন্ধিত একটি আদর্শিক সংগঠন। যা বিএফইউজে-বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নভুক্ত। এখানে চাঁদাবাজির কোন সুযোগ নেই। সাংবাদিকদের অধিকার আদায়ের লড়াইয়ে মাঠে ময়দানে সোচ্চার ছিলেন সাংবাদিক নেতা জামিল হাসান খান খোকন। তিনি কোন চাঁদাবাজি কিংবা ভাগবাটোয়ারার সাথে জড়িত ছিলেন না। সৎ ও নির্ভীক, পরিচ্ছন্ন সাংবাদিক নেতা ছিলেন। তার নামাজে জানাযার হাজার হাজার মানুষের উপস্থিতি তার জনপ্রিয়তা প্রমাণ করে। বিএনপি-জামায়াতপন্থী সাংবাদিক ইউনিয়ন, বীর প্রতীক মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল আলীমের হত্যাকারী, পাটিকাবাড়ি থেকে গণগোলাই খেয়ে পালিয়ে আসা বিএনপি ক্যাডার, একাধিক নাশকতা মামলার আসামী, গাংনী থেকে পালিয়ে আসা যারা অবৈধ ভুয়া নিউজ পোর্টালে মিথ্যাচার করছে। জীবিত খোকনের চেয়ে মৃত খোকনের জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে স্বাধীনতা বিরোধীচক্র নানা রকম কল্পকাহিনী নিয়ে মাঠে নেমেছে। বিপ্লব-খোকনের নেতৃত্বে কুষ্টিয়া আদালত চত্বরে খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা মাহমুদুর রহমানকে কালো পতাকা দেখানো হয়। সেদিন যারা মাহমুদুর রহমানের ব্যাগ বহন করেছিলেন, পানি টেনেছিলেন আজ তারাই সাংবাদিক নেতা খোকনের বিরুদ্ধে অবস্থান করছে। কুষ্টিয়া ষ্টেডিয়ামে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীকে নিউজ24 চ্যানেলের পক্ষে জামিল হাসান খান খোকন প্রশ্ন করেছিলেন ইউনিপেটুইউ এর শীর্ষ প্রতারক মিঠু চৌধুরী হাজার হাজার কোটি টাকা প্রতারনা করে পালিয়েছে, তার বিরুদ্ধে থানায় ওয়ারেন্ট ও মাল ক্রোকের অর্ডার পড়ে আছে এই প্রতারকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে কি না। মিঠু চৌধুরীর বিচার দাবীতে বিপ্লব-খোকনের নেতৃত্বে শহরের ৫ রাস্তা মোড়ে মানববন্ধন করা হয়। সেই ক্ষোভের আগুন থেকে মিঠু চৌধুরী ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়। এই স্ট্যাটাস বাস্তবায়নে মাঠে নেমেছে ইউনিপেটুইউ’র পাহারাদার, মাসিক বেতনভুক্ত দালালচক্র, মিঠু চৌধুরীর বাসভবনে যে পত্রিকা ও টেলিভিশন অফিস করেছে তারা, মিঠু চৌধুরীর সাবেক রক্ষিতা তারা নানান ষড়যন্ত্র করছে। এর আগে আরশীনগর ভবনে মিঠু চৌধুরী সাংবাদিক বিপ্লব-খোকনকে হত্যার উদ্দেশ্যে গুলি করায়।

 

সেই শীর্ষ প্রতারক মিঠু চৌধুরী কুষ্টিয়ায় ব্যাপক টাকা ছড়িয়ে খোকন- বিপ্লবের বিরুদ্ধে যে কোন প্রতিশোধ নিতে মরিয়া হয়ে উঠেছে।

যারা বিগত সময়ে খোকনের উপর হামলা, মামলা ও জিডি করেছে তারাই কৌশলে মৃত ব্যক্তির নামে মানহানীকর বিষোদগার করছে। আদর্শগতভাবে সারাজীবন খোকনের বিরুদ্ধে অবস্থানকারীরা মৃত খোকনের লাশ তুলে হাতুড়ি ছেনির আঘাতে প্রতিশোধ নিতে উদ্যত।

 

নাফিজ আহমেদ টিটু বলেন, খোকন কোনদিন অসুস্থ ছিলো না। ছোট বেলায় ফুটবল খেলতে যেয়ে পায়ে ব্যথা ছিল।
সাংবাদিক খোকনের ভাই যে, তার কোন খোঁজ রাখেনি এথেকে প্রমাণ মেলে। খোকনের বাসায় এখনও দুটি অক্সিজেন সিলিন্ডার আছে। গুরুতর অসুস্থ হয়ে একাধিকবার কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে, ঢাকায়, ভারতে চিকিৎসা গ্রহন করেছেন সাংবাদিক নেতা খোকন। ৩ বার প্রধানমন্ত্রীর চিকিৎসার অনুদানও পেয়েছেন তিনি।

 

গত কয়েকদিন ধরে সাংবাদিক খোকন মানসিক চাপে ছিলেন বলেন তার সহকর্মীদের জানিয়েছিলেন। বাড়ির সামনে দোকান ও বটতৈলের জমি নিয়ে পারিবারিকভাবে দ্বন্দ্ব চলছিল। যা সাংবাদিক খোকনের মোবাইলের কল রেকর্ড সংগ্রহ করলেই দেখা যাবে তার হার্টবিট কারা বাড়িয়েছিলো?

 

সংবাদ সম্মেলনে দেখা যায় নাফিস আহমেদ টিটু নাম না বলতে পারলেও সামনের বিএনপি জামায়াত পন্থীরা আসামী হিসেবে মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের সাংবাদিকদের নাম বলে দিচ্ছিলো যা ফেসবুক লাইভে অনেকে প্রত্যক্ষ করেছেন।
তাছাড়াও শোকে মুহ্যমান খোকনের স্ত্রী ও তার দুই নাবালক সন্তানের সামনে বুম দিয়ে বক্তব্য নেওয়ার চেষ্টা করলেও তারা ঘৃনাভরে প্রত্যাখ্যান করেছে।

 

সাংবাদিক সম্মেলনে কুষ্টিয়া প্রেসক্লাব কেপিসির সাধারণ সম্পাদক সোহেল রানা, সাংবাদিক ইউনিয়নের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মিলন উল্লাহ, সাংবাদিক ইউনিয়ন কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মাহমুদ হাসান, আফরোজা আক্তার ডিউ উপস্থিত ছিলেন।




আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....

ব্রেকিং নিউজ
ব্রেকিং নিউজ